Tuesday, October 15, 2019

বিরাট বড় ধাক্কা ! এইমাত্র ২৫ হাজার হোমগার্ডকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করলেন রাজ্য সরকার।


    আর কয়েকদিন পরেই দীপাবলী উৎসব। আর তার আগেই 25 হাজার হোমগার্ডের জীবন শেষ করে দিলেন রাজ্য সরকার। তাদেরকে চাকরি থেকে বসিয়ে দিলেন সরকার। উত্তরপ্রদেশ সরকারের তরফ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এ খবর জানানো হয়েছে। সূত্রের খবর অনুযায়ী বাজেট বেড়ে যাওয়ার কারণে উত্তর প্রদেশ সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। রাজ্য স্বরাষ্ট্র দপ্তর সূত্রে জানা যাচ্ছে ট্রাফিক সিগন্যাল এবং থানায় যেসব হোমগার্ড নিয়োগ করা হয়েছিল তাদেরকে দায়িত্ব থেকে অপসারণ করা হচ্ছে। সরকারের প্রয়োজন অনুযায়ী তাদেরকে পুনরায় নিয়োগ করা হতে পারে।



    কিছুদিন আগে আদালত নির্দেশ দেয় যে হোমগার্ডদের বেতন দৈনিক 500 টাকা থেকে বাড়িয়ে 672 টাকা করতে হবে এবং তাদেরকে তাদের বকেয়া মিটিয়ে দিতে হবে। কারণ তাদের নির্দিষ্ট কোনো মাসিক বেতন নেই। তারা মাসে যতদিন ডিউটি করেন তার ওপর ভিত্তি করে তাদের বেতন দেওয়া হয়। অর্থাৎ "No work No pay" এর ভিত্তিতে হোমগার্ডের বেতন হয়। আদালতের এই ধরনের নির্দেশের পরেই উত্তরপ্রদেশ সরকার সিদ্ধান্ত নেয় যে 25 হাজার হোমগার্ডকে বসিয়ে দেওয়া হবে। পুলিশের এক উচ্চপদস্থ কর্তা বলেন, "সরকার কেন এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আমার জানা নেই। তবে অতিরিক্ত হোমগার্ডদের বসিয়ে দেওয়া হয়েছে"। 


 ‌‌‌   উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এর সরকারের এই ধরনের সিদ্ধান্তের পরেই ঐ রাজ্যের বিরোধী শিবির থেকে একের পর এক চাপ আসতে শুরু করেছে। কংগ্রেসের অজয় কুমারের বক্তব্য,  "ভোটের আগে যোগী আদিত্যনাথের সরকার যেখানে কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, অথচ ক্ষমতায় এসেই এই সরকার কর্মী ছাঁটাই শুরু করে দিয়েছেন। হাজার হাজার মানুষের এবং তাদের পরিবারের পেটে লাথি মারছেন এই সরকার। দেশের সর্বোচ্চ আদালত যেখানে হোমগার্ডদের নিরাপত্তার কথা ভাবছেন, সেখানে উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ এর সরকার সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে চলেছেন।"

No comments:

Post a Comment